বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রগামী শিক্ষার্থীর সংখ্যায় রেকর্ড

গত ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশ থেকে ১০,৫৯৭ জন শিক্ষার্থী পড়াশোনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছেন, যা এর আগের শিক্ষাবর্ষের তুলনায় ২৩.২০ শতাংশ বেশি। প্রতিবছর যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের সংখ্যার দিক থেকে এটা একটা নতুন রেকর্ড। গত এক দশকে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা করতে যাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা তিনগুণেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১১-২০১২ শিক্ষাবর্ষে মাত্র ৩,৩১৪ জন শিক্ষার্থী যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমিয়েছিলেন। আর গত বছর গেছেন ১০,৫৯৭ জন। 

স্বাধীনতার কয়েক বছর পর ১৯৭৪-১৯৭৫ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশ থেকে ৪৮০ জন শিক্ষার্থী যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন। 

কোন দেশ বা অঞ্চল থেকে কত সংখ্যক শিক্ষার্থী যুক্তরাষ্ট্রে পড়তে যান, সেই তালিকায় বাংলাদেশ এবার একধাপ এগিয়ে ১৩তম স্থানে উঠে এসেছে। গত শিক্ষাবর্ষে সবচেয়ে বেশি ২,৯০,০৮৬ জন শিক্ষার্থী পাঠিয়ে তালিকার ১ নম্বরে অবস্থান করছে চীন। এরপর আছে যথাক্রমে ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, কানাডা, ভিয়েতনাম ও তাইওয়ান। 

বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের সবসময় স্বাগত জানায়। বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রে যুগান্তকারী গবেষণায় জড়িত হওয়া থেকে শুরু করে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ক্যাম্পাসের জীবনকে সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে তাদের মেধার স্বাক্ষর রেখে চলেছে। আরও বেশি বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রকে বেছে নিচ্ছেন দেখে আমরা আনন্দিত।’

প্রতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষা ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় এবং ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল এজুকেশন যৌথভাবে ‘ওপেন ডোরস রিপোর্ট অন ইন্টারন্যাশনাল এজুকেশন এক্সচেঞ্জ’ নামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এই প্রতিবেদনে বিশ্বজুড়ে শিক্ষার উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্রে ভূমিকা এবং যুক্তরাষ্ট্রে পড়তে যাওয়া ও দেশটি থেকে অন্যত্র পড়তে যাওয়া শিক্ষার্থীদের পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হয়। 

এই প্রতিবেদন অনুসারে ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে ৭,১৪৩; ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ৭,৪৯৬; ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ৮,২৪৯; ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ৮,৮৩৮; ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ৮,৫৯৮ এবং ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ১০,৫৯৭ জন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী যুক্তরাষ্ট্রে পড়তে গেছেন। 

বিশ্বজুড়ে যুক্তরাষ্ট্রে পড়তে যাওয়ার ব্যাপারে আগ্রহীদের বিস্তারিত ও নির্ভুল তথ্য প্রদান করার লক্ষ্যে মার্কিন সরকার ‘এজুকেশনইউএসএ’ নামে একটি প্রকল্প পরিচালনা করে। এই প্রকল্পের আওতায় ৪৩০টিরও বেশি তথ্যকেন্দ্র থেকে বিনামূল্যে ভার্চুয়ালি বা সরাসরি উপস্থিত হয়ে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়। বাংলাদেশে এ তথ্যকেন্দ্রগুলো হচ্ছে: 

  • দ্য আমেরিকান সেন্টার, ইউ.এস. অ্যামবাসি, ঢাকা। 
  • এডওয়ার্ড এম. কেনেডি (ইএমকে) সেন্টার ফর পাবলিক সার্ভিস অ্যান্ড আর্টস, ধানমন্ডি, ঢাকা। 
  • আমেরিকান কর্নার খুলনা (নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজি, শিববাড়ি মোড়, খুলনা)।
  • আমেরিকান কর্নার সিলেট (সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, শামীমাবাদ, বাড়বাড়ি, সিলেট)।
  • আমেরিকান কর্নার রাজশাহী (বরেন্দ্র ইউনিভার্সিটি, বাড়ি#৫৩২, জাহাঙ্গীর স্মরণী, তালাইমারি, রাজশাহী)।
  • আমেরিকান কর্নার চট্টগ্রাম (প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি, ১/এ, ও.আর. নিজাম রোড, প্রবর্তক সার্কেল, পাঁচলাইশ, চট্টগ্রাম। 
  • 1/A, O.R. Nizam Road, Prabartak Circle, Panchlaish, Chattogra

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আবেদন, ভর্তি প্রস্তুতি ও প্রক্রিয়া, বৃত্তি ও খরচ সম্পর্কে জানতে https://www.facebook.com/EdUSABangladesh এই ফেসবুক পেজে নজর রাখতে পারেন। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *