নতুন বছরে প্রিয় পে’র যেসব পরিবর্তন আসছে

সবাইকে বড়দিনের শুভেচ্ছা।

আগামী ১ জানুয়ারি ২০২৪ থেকে প্রিয় পে-তে বেশ কিছু বিষয়ে পরিবর্তন আসবে। সেগুলো সম্পর্কে সবাইকে অবগিত করার জন্য এই পোস্ট। পাশাপাশি বর্তমান গ্রাহকদেরকে ই-মেইলের মাধ্যমে বিষয়গুলো জানানো হবে।

নতুন বছরে যেসব পরিবর্তন নিয়ে আসছে প্রিয় পে-

১. কেওয়াইসি (KYC) প্রক্রিয়া আরও কঠিন

প্রিয় পে প্রথম থেকেই কেওয়াইসি (KYC) করে আসছে সয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে। কিন্তু সেই প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়েও কিছু মানুষ সাইন-আপ করেছেন যারা এই প্ল্যাটফর্মটি এমনভাবে ব্যবহার করছেন, যার ব্যাখ্যা তারা দিতে পারছেন না। আমরা প্রথম দিন থেকেই বলে আসছি, আপনি এমন কোনোও কাজে প্রিয় পে ব্যবহার করতে পারবেন না, যা আপনি কাগজপত্র দিয়ে ব্যাখ্যা করতে পারবেন না। আপনি এমন কোনোও ট্রানজেকশন করতে পারবেন না, যা আপনি যৌক্তিক কাগজপত্র দিয়ে সমর্থন করতে পারবেন না।আমরা এমন কোনোও গ্রাহককে সেবা প্রদান করতে চাই না, যার আয় এবং ট্রানজেকশন নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। আমরা শুধু তাদেরকেই সেবা দিতে চাই, যাদের বৈধ আয় রয়েছে, কারও সাথে বাণিজ্যিক সম্পর্ক রয়েছে, কিংবা এমন কারও সাথে ট্রানজেকশন করছেন যার সাথে তার যৌক্তিক সম্পর্ক রয়েছে। যেমন- পারিবারিক সম্পর্ক, ব্যাবসায়িক সম্পর্ক ইত্যাদি।

তাই কেওয়াইসি প্রক্রিয়া আরও কঠিন করা হয়েছে। টাকা দিলেই আপনি অ্যাকাউন্ট পাবেন, তা নয়। আপনার সকল কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে নিশ্চিত হলেই আপনি অ্যাকাউন্ট পাবেন। তাতে অন-বোর্ডিং প্রক্রিয়া একটু ধীর হবে। কিন্তু সঠিক ব্যবহারকারীরাই এই প্ল্যাটফর্মটিতে যুক্ত হবেন।

২. জাতীয় ডাটাবেজের (NID) সাথে যুক্ত

সম্প্রতি প্রিয় পে-কে বাংলাদেশের জাতীয় পরিচয়পত্র ডাটাবেজের সাথে যুক্ত করা হয়েছে। নতুন সকল গ্রাহকের তথ্য এই ডাটাবেজের তথ্যের সাথে মেলানো হবে। পাশাপাশি পুরোনো গ্রাহকদের তথ্যও যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। মিথ্যা তথ্য কিংবা অন্য নামে অ্যাকাউন্ট খুলে থাকলে, সেই সকল অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হবে।

৩. অনবোর্ডিং খরচ বৃদ্ধি

যেহেতু আরও বেশি কঠিন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে কেওয়াইসি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হচ্ছে এবং এই সিস্টেমগুলো ব্যবহারে চার্জ দিতে হচ্ছে, তাই আমাদের অনবোর্ডিং খরচ বেড়ে গেছে। এক্ষেত্রে গ্রাহকদেরকে বাড়তি ফি দিতে হবে। ফি-র পরিমাণ সাইন-আপ প্রক্রিয়ার সময় গ্রাহককে দেখানো হবে।

৪. ট্রানজেকশন ফি বাড়বে

দুটি ক্ষেত্রে ফি বাড়বে-
ক) ক্যাশঅ্যাপ (CashApp) থেকে ডলার আনা
খ) এসিএইচ (ACH)-এ পুনরায় ফি বসানো হবে।

ফি সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য ওয়েবসাইটে দেখানো হবে। পাশাপাশি ই-মেইলেও জানিয়ে দেওয়া হবে।

৫. ফ্রিল্যান্সারদের জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা

আমাদের মূল উদ্দেশ্য যেহেতু ফ্রিল্যান্সারদেরকে সাহায্য করা, তাই নতুন ফ্রিল্যান্সারদের স্কিল বাড়ানোর জন্য ট্রেনিং দেওয়া হবে। আমাদের নেটওয়ার্কে যারা ভালোভাবে বিষয়গুলো জানেন, তারা আমাদের এই কাজে সহায়তা করতে পারেন। তাদেরকে আমরা পারিশ্রমিকের বিনিময়ে ট্রেইনার হিসেবে নিতে পারি। যারা বিভিন্ন বিষয়ে ভালো, তারা আমাদের এই কার্যক্রমকে সহায়তা করতে পারেন। আগ্রহী বিশেষজ্ঞরা আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

পরিশেষে আরেকটি বিষয় না বললেই নয়। আপনারা যারা আমাদের প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করছেন, তারা নিশ্চয়ই জানেন, এই পৃথিবীতে সবচেয়ে কঠিন মুদ্রা হলো ডলার। সারা পৃথিবীতে ডলারের মুভমেন্ট খুব কঠিনভাবে মনিটর করা হয়। আর্থিক প্রতিষ্ঠান, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং আরও নানান ধরনের মনিটরিং রয়েছে।

আমাদের ব্যবহারকারীরা যেহেতু বাংলাদেশি, তারা অনেকেই এটাকে “টাকার” মতো ট্রিট করে থাকেন। তাদের অনেকে মনে করেন, আমি একজনকে ডলার দিবো, তাতে ব্যাংকের সমস্যা কী? কমনসেন্সে তাই মনে হবে। কিন্তু সারা পৃথিবী তো আর আমার-আপনার এই কমনসেন্স দিয়ে চলে না। অনেক নিয়ম তৈরি হয়েছে, যা আমাদেরকে মেনে চলতে হয়। আশা করি, আপনারাও এর গুরুত্বটা বুঝতে পারবেন। যারা এই প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হয়েছেন, তারা মূলত একটি আন্তর্জাতিক পেমেন্ট প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হয়েছেন। আন্তর্জাতিক নিয়ম-নীতি মেনেই প্রিয় পে-কে চলতে হয়। তার প্রতি সন্মান দেখালে আমাদের কাজ করতে সুবিধা হবে।

নিশ্চিত হোন, আপনি যার সাথে ট্রানজেকশন করছেন তিনি নিরাপদ কি না? তার নাম কোনোও ওয়াচলিস্টে আছে কি না? বিষয়টি জানাটা আপনার নিরাপত্তার জন্য জরুরি। নইলে, কোনোও ক্রিমিনালের সাথে লেনদেন করে আপনি নিজেও ঝামেলায় পড়তে পারেন!সবার সহযোগিতা কামনা করছি। এবং আপনাদের কোনোও প্রশ্ন কিংবা সন্দেহ থাকলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আমরা যতটা পারছি, আপনাদেরকে সহযোগিতা করব।

সবাই ভালো থাকবেন।

জাকারিয়া স্বপন
প্রিয় সিইও

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *