Anisul.Haque's blog

Anisul.Haque's picture

ভালোবাসি তাই, ভালো কাজ চাই

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে বিদেশি কূটনীতিকদের, আন্তর্জাতিক নানা সংস্থার ব্যাপক তৎপরতা দেখা দিয়েছিল। একদিকে আমেরিকা থেকে উড়ে আসেন নিশা দেশাই, আরেক দিকে ভারত থেকে আসেন সুজাতা সিং। এই জাতিসংঘের সেক্রেটারির ফোন তো ওই ইউরোপীয় ইউনিয়নের বার্তা। তাঁরা একবার আওয়ামী লীগের নেতার সঙ্গে দেখা করেন, একবার বিএনপির নেতার সঙ্গে। তাঁরা কী বলতেন?

Anisul.Haque's picture

ভাই, শান্তিতে থাকতে দিন

গণতন্ত্রে তাঁরাই দেশ শাসন করবেন, যাঁরা জনগণের প্রতিনিধি। জনমতের প্রকৃত প্রতিফলন ঘটে, এমন একটা নির্বাচনের মাধ্যমে এই প্রতিনিধিরা ক্ষমতায় আসবেন। তাঁরা সংখ্যাগরিষ্ঠ নাগরিকের সমর্থনধন্য হবেন। কাজেই একটা সুন্দর, অর্থবহ, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন গণতন্ত্রের একেবারে প্রাথমিক ও মৌলিক একটা শর্ত। তবে, এটা অন্যতম শর্ত। গণতন্ত্রের আরও কতগুলো শর্ত আছে, লক্ষণ আছে।

Anisul.Haque's picture

কুকুরের এমবিএ ডিগ্রি ও অন্যান্য

একটা কুকুর লাভ করেছে এমবিএ ডিগ্রি। আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব লন্ডন থেকে। বিবিসি নিউজনাইট এই তথ্য উন্মোচন করেছে। আবার একটা কুকুরকেও যে একটা বিশ্ববিদ্যালয় এমবিএ ডিগ্রি দিতে পারে, সেই নাটকটা সাজিয়েছেও তারাই। তারা এইউওএল নামের ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএর জন্য আবেদন করেছে কুকুরের নামে। বলেছে, এমবিএ ডিগ্রি চাই। তারা একটা জীবনবৃত্তান্ত বানিয়েছে, সম্পূর্ণ মিথ্যা তথ্য দিয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম হলো, পুরোনো ডিগ্রির কপি, শিক্ষার্থীর ফটো জমা দিতে হবে। যেহেতু আবেদনকারী একটা কুকুর, কাজেই তারা তা জমা দিতে পারেনি।

Anisul.Haque's picture

নেতাদের কাছে আকুল আবেদন

কী কী ঘটতে পারে আগামী কয়েক দিনে? কেউ জানে না। এই প্রশ্নের উত্তর কারও কাছে নেই। ছয় মাস আগে যদি কোনো মন্ত্রীকে পেয়ে কোনো সাংবাদিক জিজ্ঞেস করতেন, কী হবে, জানেন কিছু? উত্তর আসত, আপনি কিছু জানেন? এখনো অবস্থা তা-ই। কী হবে, কেউ জানে না। সম্ভবত প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেত্রীও জানেন না, কী হবে। তাঁদের নিশ্চয়ই পরিকল্পনা আছে, ছক আছে, ছক ১, ছক ২, ছক ৩। কিন্তু ছক অনুযায়ী যে সব সময় সবকিছু হবে, তা তো নয়। ২০০৬ সালের আগে বিএনপির ক্ষমতাকেন্দ্রের খুব কাছের একজনকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, কী হবে। তিনি বলেছিলেন, হয় বিএনপি আবার নির্বাচিত হবে, না হলে অন্য কেউ ক্ষমতায় আসবে, আওয়ামী লীগ আর ক্ষমতায় আসবে না।

Anisul.Haque's picture

আগুনের পরশমণি

আশি হাজারেরও বেশি ছেলেমেয়ে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট ও সমমানের পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে। প্রথম আলোর পক্ষ থেকে টেলিটকের সহযোগিতায় দেশব্যাপী আয়োজন করা হয়েছিল এই ছেলেমেয়েদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। গত শুক্রবার শেষ দুটো অনুষ্ঠান হলো ঢাকার অদূরে নন্দন পার্কে। এতে যোগ দিয়েছে প্রায় ১৫ হাজার ছাত্রছাত্রী। এর আগে এ রকম অনুষ্ঠান হয়েছে প্রতিটি জেলায়। রংপুরের অনুষ্ঠানে আমি গিয়েছিলাম। আর গিয়েছিলাম গাজীপুরের নন্দন পার্কের অনুষ্ঠান দুটোয়। এসব অনুষ্ঠানে গেলে, এই তরুণ মেধাবীদের আশা আর কৌতূহলে ভরা চোখগুলোর দিকে তাকালে আপনি নতুন উদ্যম লাভ করবেন, নতুন আশায় আপনার চেতনা যেন পুনরুজ্জীবিত হয়ে উঠবে।

Anisul.Haque's picture

অথচ তিনি পরীক্ষায় ফেল করেছিলেন...

সাবিরুল ইসলামের বক্তৃতা শুনছিলাম। ২৩ বছরের তরুণ, সিলেটের বিশ্বনাথে পৈতৃক বাড়ি। জন্ম, বেড়ে ওঠা ব্রিটেনে। পৃথিবীর তরুণতম উদ্যোক্তাদের একজন, ১৪ বছর বয়স থেকে তিনি নিজের উদ্যোগে ব্যবসা করা আরম্ভ করেন। তিনি পৃথিবীর কনিষ্ঠতম কোটিপতিদের একজন। ২০১০ সালে তিনি নির্বাচিত হয়েছেন বিশ্বের কনিষ্ঠতম ২০ শিল্পোদ্যোক্তাদের একজন হিসেবে।

১৭ বছর বয়সে তিনি বই রচনা করেন, দ্য ওয়ার্ল্ড অ্যাট ইয়োর ফিট। এখন তিনি ১০ লাখ তরুণের সামনে বক্তৃতা করার কর্মসূচি নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন দেশ-বিদেশ, আট লাখ ৮৫ হাজারের সামনে কথা বলা এরই মধ্যে শেষ হয়ে গেছে।

Anisul.Haque's picture

দেশে কী হতে যাচ্ছে?

যেখানেই যাবেন, আপনাকে একটা প্রশ্ন শুনতে হবে, সুযোগ পেলে আপনিও সে প্রশ্নটাই করবেন—কী হতে যাচ্ছে দেশে? ঠিক সময়ে কি নির্বাচন হবে? হলে কী হবে? না হলে কী হবে? কোনো সমঝোতা কি হবে? না হলে কী হবে?
এই প্রশ্নের উত্তর একটা ধাঁধাচিত্র। সেই পাজলের টুকরাগুলো কোনো একটা হাতে আছে বলে মনে হয় না। সব টুকরা একখানে করলে একটা পূর্ণাঙ্গ ছবি পাওয়া যাবে, কিন্তু মুশকিল হলো টুকরাগুলো একজনের হাতে নেই। কাজেই কেউই এ প্রশ্নের উত্তর জানে বলে মনে হয় না। সরকারের মন্ত্রীরা, সাংসদেরাও জানেন না। উত্তর বিরোধী দলের কাছেও আসলে নেই।

Anisul.Haque's picture

পৃথিবীর সুন্দরতম গল্পগুলো

ভুল থেকে শেখা
টমাস আলভা এডিসন গবেষণা করছেন, তিনি বৈদ্যুতিক বাতি উদ্ভাবন করার চেষ্টায় রত। বালবের ভেতরের তারটা কিসের হবে, তিনি সেটা নিয়ে মত্ত। একটার পর একটা ধাতু, যৌগ, সংকর দিয়ে তিনি ফিলামেন্ট বানাতে লাগলেন। দুই হাজার রকমের তার বানানো হলো। একটাও কাজে লাগল না। তাঁর সহকারী বলল, আমাদের এত দিনের চেষ্টা পুরোটাই ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়ে গেল। আমরা কিছুই শিখতে পারলাম না।

Anisul.Haque's picture

সালমানের হরিণ শিকার ও ফেলানী

বলিউডের নায়ক সালমান খান। তিনি শিকার করেছিলেন একটা বিরল প্রজাতির হরিণকে। ১৪ বছর আগে রাজস্থানে শুটিং করতে গিয়ে তিনি এই শিকারকাণ্ড ঘটিয়েছিলেন। তাঁর বিচার হচ্ছে ভারতের আদালতে। শুধু সালমান খানের নয়, তাঁকে এই শিকারে উৎসাহিত করার অভিযোগে বিচার হচ্ছে সাইফ আলী খান, সোনালি বেন্দ্রে প্রমুখের। যদি অভিযোগ প্রমাণিত হয়, সালমান খানের তিন বছর থেকে ছয় বছরের জেল হতে পারে। ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি সংঘটিত এক হত্যাকাণ্ডের ছবি যাঁরা দেখেছেন, তাঁদের সবাই স্তব্ধ হয়ে গেছেন। কি বাংলাদেশে, কি বাংলাদেশের বাইরে, বিবেকবান মানুষের হূদয় বিদীর্ণ হয়েছে। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়ায় ঝুলে আছে এক কিশোরী।

Anisul.Haque's picture

মান্নান সৈয়দ ও একটি পিস্তল

আট-দশ বছর আগে আমার একটা নিয়মিত কাজ ছিল আমার মেকার বন্ধুদের জন্য বিভিন্ন জায়গায় তদবির করা। মেকার মানে নির্মাতা। এঁরা সবাই টেলিভিশনের জন্য নাটক বানান। নানা ধরনের তদবির করতে হতো। অমুক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে একটু বলে দেন যেন শুটিং করার পারমিশন দেয়। অমুককে বলে দেন যেন ট্রেনের ছাদে শুটিং করতে দেয়।

এ ছাড়া ছিল পুলিশকে ফোন করা—এক. থানায় শুটিংয়ের পারমিশনের জন্য। দুই. অমুককে পুলিশ ধরেছে, ওকে একটু ছাড়তে বলেন।

Syndicate content