Md. Rowshon Alam's picture

ক্রিকেটে কষ্ট, ক্রিকেটেই আনন্দ, ক্রিকেট আমার ভালবাসা

আমি নিজে কখনোই ক্রিকেট খেলিনি, তবে ক্রিকেট খেলা দেখার একজন অকৃতিম দর্শক হিসাবে মনটাকে এখনো তাজা রেখেছি। বিশেষ করে খেলাটি যখন বাংলাদেশ বনাম অন্য যে কোনো দেশের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়, তাহলে তো কোনো কথায় নেই! সেই খেলা দেখা আমার চাই-ই চাই। টেলিভিশনের চ্যানেল বা কম্পিউটারে ক্রিকেট ওয়েবসাইটগুলো ওপেন রেখে নিঝুম রাতে তাই খেলা দেখাটা একটা নিয়মিত অভ্যাসে পরিনত হয়েছে। বাংলাদেশ সময় দিনে খেলা শুরু হলে আমেরিকাতে হয় তখন রাত।

Waset Shahin's picture

অনুপম দর্শনীয় গাজীপুর বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্ক

মানুষ স্বভাবতই বৈচিত্র পিয়াসী এবং নতুনত্বের স্বাদ আস্বাদনে উদগ্রীব। পৃথিবীর নানাপ্রান্তে যত প্রাণী, জড় ও বিচিত্র পরিবেশ বিদ্যমান রয়েছে সেসব জানার জন্য মানুষের রয়েছে অদম্য আগ্রহ। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের লোকালয় ও বনাঞ্চলে বিচরণকারী জন্তু জানোয়ার সচক্ষে দেখার স্বাদ আস্বাদন এক মজার পরিতৃপ্তি ও অভিজ্ঞতা। পৃথিবীর সর্ব প্রথম চিড়িয়াখানা প্রতিষ্ঠিত হয় লন্ডনে ১৮২৮ সালে। এখনতো পৃথিবীর প্রতিটি দেশেই রয়েছে চিড়িয়াখানা। গভীর বনের হিংস্র এবং অন্যান্ন নানান প্রাণী এসব চিড়িয়াখানায় খাঁচার ভেতরে রেখে প্রদর্শন করে জনগনের চিত্তবিনোদন এর উদ্দেশ্য।

Md. Galib Mehdi Khan's picture

জামায়াত নিষিদ্ধ করতে হলে......।

IslamMohammad_1353052404_1-P1_shibir-police.jpg
এখনো অর্ধেক আসনে নির্বাচন বাকিই আছে। এরই মধ্যে আমরা, বিশটি আসনে জামায়াতের প্রার্থী নির্বাচিত হতে দেখেছি। আর এই নির্বাচিত হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় তাদেরকে বলতে শুনেছি, আওয়ামী লীগ কর্তৃক জামায়াতের উপর চালানো দমন পীড়নের জবাব দিয়েছে সাধারণ মানুষ। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন জাগে সাধারণ মানুষ কেন জামায়াত কর্তৃক চালানো নৈরাজ্যের প্রতিবাদ না করে সরকার কর্তৃক তাদের দমনের প্রতিবাদ করছে?

Mchowdhury's picture

দুটি কবিতা- কাল রাতে

কাল রাতে...১

feather.png

কাল রাতে জোনাকিরা নিঃশব্দে
ফিরে গেছে আরও এক বার
স্মৃতির চলন বিলে
যেখানে জলজ গন্ধ ভরা
সিক্ত শ্রাবণ বাতাসে
স্মৃতির বিবাগী নক্ষত্ররা
পাখির পালক হয়ে ভাসে
অন্ধকারে...
পরিচয়হীনা অলক্ষ্যে
এক বরেন্দ্র সরোবরে।

syed shah salim ahmed's picture

লন্ডনে এক সন্ধ্যাবেলায় লেবার দলীয় সংসদ সদস্য প্রার্থী বাংলাদেশী রুপা জানালেন তার স্বপ্নের কথা ( ভিডিও )

আগামী বছর ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচন। কিন্তু এর মধ্যেই শুরু হয়ে গেছে প্রার্থী বাছাই, চূড়ান্ত করণ, নির্বাচনী ক্যাম্পেইন সহ নানা নির্বাচনী প্রচারণা। এবার ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে প্রধান দুই দল কনজারভেটিভ এবং বিরোধী দল লেবার পার্টি ব্রিটিশ বাংলাদেশীদের মধ্য থেকে তাদের প্রার্থী মনোনয়ন চূড়ান্ত করেছে। লেবার দল থেকে নয়া প্রার্থী হিসেবে টিউলিপ সিদ্দিকী এবং রুপা হকের নাম চূড়ান্ত হয়েছে। একই সাথে কনজারভেটিভ দল থেকে মিনা রহমানের নাম ঘোষিত হয়েছে। অবশ্য ইতিমধ্যে বেথনাল গ্রিন বো আসন থেকে লেবার দলের সাংসদ হিসেবে রোশনারা আলী সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালন কয়রে যাচ্ছেন।

syed shah salim ahmed's picture

একজন বীর উত্তম মেজর জেনারেল (অবঃ) আবুল মঞ্জুর কি ন্যায় বিচার পাবেননা ?

১৯৮১ সালের ৩১ মে বাংলাদেশের ইতিহাসে আরো এক কালো অধ্যায় ঘটে যায়। সেদিন চট্টগ্রামে সার্কিট হাউসে তথাকথিত সেনা অভ্যুত্থানে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মেজর জিয়াউর রহমান, যিনি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে পালন করেছিলেন অসাধারণ এক ভূমিকা। নিয়তির কি নির্মম নিষ্ঠুর পরিহাস, একজন মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর জন্য আরেকজন বীর মুক্তিযোদ্ধা তৎকালীন চট্টগ্রামের জিওসি মেজর জেনারেল আবুল মঞ্জুর বীর উত্তমকে পুলিশী কাস্টডিতে ধৃত অবস্থায় সেনানিবাসের পথে আনার পথে কতিপয় উচ্ছৃঙ্খল সেনাসদস্যদের(?)দ্বারা নিহত হন।

S. Ashraf Ahmed's picture

একুশের কষ্ট

ভদ্রলোক পুস্তক পরিচিতি-টি পড়ে বললেন, এখানে দেখতে পাচ্ছি আপনি আমাদের প্রতিদিনের তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে লিখেছেন। তুচ্ছ ঘটনা বলতে কি বোঝাচ্ছেন তা দয়া করে একটু বুঝিয়ে বলবেন কি? আমি তাঁর দিকে তাকালাম। বয়স পঁয়ত্রিশ থেকে পঁয়তাল্লিশের মাঝে, লম্বা গড়ন, গাঢ় শ্যামলা গায়ের রঙ। বইটি সম্পর্কে আগ্রহ এবং কথায় বিনয় থাকলেও চেহারায় কোন হাসি বা উচ্ছাস নেই বরং বিষন্নতার একটি প্রাধান্য আছে।

Waset Shahin's picture

রংধনূ-৭

সাহেদাই দরোজা খুলে দিলেন। তমাকে দেখেই হাত দিয়ে কাছে টেনে নিলেন। ‘কেমন আছ তুমি মা?’ মার গলা জড়িয়ে ধরে তমা জিজ্ঞেস করল।
‘আছি মা ভাল, তুই কেমন আছিস?’
মেয়েকে তাঁর ঘরে রেখে তিনি রান্না ঘরে ঢুকলেন। দ্রুত এক গ্লাস লেবুর শরবৎ বানিয়ে নিয়ে এলেন। রাত দশটা বাজে প্রায়। তাঁর রাতের খাবার শেষ হয়েছে বেশ আগে। তমা বলল,’ শরবৎ খাবনা। ভাত খাব। খিদে লেগেছে। ভাত কি মা আছে?’ সাহেদা হাসলেন।

মাতৃভাষা চর্চার সংগ্রাম

এ মুহূর্তে বাংলাদেশে যত সংখ্যক উচ্চতর ডিগ্রিধারী মানুষ আছেন তাদের মধ্যে কতজন শুদ্ধ বাংলা লিখতে বা পড়তে পারেন তা আমার জানা নেই। যেমন আমি নিজেই জানি না ।জানতে আগ্রহও নেই আমাদের কারণ আমার ও আমাদের মধ্যে বাংলা ভাষা সম্পর্কে এক ধরনের হীনম্মন্যতাবোধ ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। পঁচাত্তর পরবর্তী আমরা যারা প্রাথমিক স্তর থেকে বাংলা ও ইংরেজিকে অবশ্যপাঠ্য হিসেবে জেনে পড়ালেখা শুরু করেছি তারা কি বাংলা অথবা ইংরেজি কোন একটাও শুদ্ধভাবে শিখতে পেরেছি কিনা। আমার বুকে হাত দিয়ে সে সত্য বলার সাহস নেই। যারা ইংরেজি একটু আধটু শিখে গর্বভরে বলার চেষ্টা করেন তারাও সেই আঞ্চলিক বাচনভঙ্গিতে বলেন যা রীতিমতো লজ্জাকর (ব্যতিক্রমী অবশ্যই আছেন)।

ভানু ভাস্কর's picture

মেধাটা অপাত্রে পড়ে, শিক্ষার পাতাটা কি নড়ে?

ছেলেটি অংকে ভাল। বলা যায় খুবই ভাল। কিন্তু অন্যান্য বিষয়ে দূর্বল হবার কারনে সে বরাবরই রেজাল্ট খারাপ করে। বিশ্লেষনধর্মী ও কিছুটা চিন্তাশীল হবার কারনে সবাই তাকে ব্যঙ্গ করে। এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে সে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবার জন্য চেষ্টা করে। কিন্তু গণিত ও পদার্থবিদ্যা ছাড়া অন্য কোন বিষয়ে সুবিধা করতে না পারার কারনে সে চান্স পেলনা। শেষে গিয়ে একটি কলেজে অনার্সে ভর্তি হল সে। বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষনা করার যেটুকু সুযোগ (সে খুবই অপ্রতুল এ দেশে), তা থেকে সে বঞ্চিত হল। পরবর্তীতে হয়ত দেশ তার কাছ থেকে অনেক কিছুই পেতে পারত, একজন ভাল গনিতবিদ হয়ে ওঠার যে আলো সবাই দেখতে পেয়েছিল, সে আলো অন্ধকারে পর্যবসিত হল একটি পরীক্ষায় অবতীর্ন হয়ে। সে পরীক্ষার নাম ভর্তি পরীক্ষা।

Syndicate content