Abdul.Gaffar.Chowdhury's picture

জীবনে জীবন যোগ করা...

রবীন্দ্রনাথ লিখেছেন, জীবনে জীবন যোগ করা, না হলে কৃত্রিম পণ্যে ব্যর্থ হয় গানের পসরা। ঈদ মানে উৎসব আর উৎসবের মর্মকথাই হল প্রাণের মিলন, জীবনে জীবন যোগ করা। শুধু বাঙালি মুসলমানের দুয়ারে নয়, সারা বিশ্ব মুসলমানের দুয়ারেই আবার ঈদুল ফিতর বা রোজার ঈদ উপস্থিত। এই উৎসবের বৈশিষ্ট্য দীর্ঘ এক মাসের কৃচ্ছ্র সাধনার পর শ্রেণী-বৈষম্য রহিত একটি উৎসব পালন করা। এই দিন ঈদের ময়দানে ধনী-দরিদ্রের সঙ্গে, অভিজাত-অচ্ছুতের সঙ্গে একাসনে বসেন এবং কোলাকুলি করেন। প্রতি ঘরে থাকে মিষ্টান্ন প্রত্যেকের জন্য।

WatchDog's picture

মধ্যপ্রাচ্য, যুদ্ধ ও শান্তি...WD

17.jpg জানুয়ারি ৩, ২০০১ সাল। হোয়াইট হাউস হতে ঘোষণা এলো মধ্যপ্রাচ্য শান্তি আলোচনায় দুই পক্ষের কাছে গ্রহণযোগ্য একটা সমাধান পাওয়া গেছে। ঘোষণার সমর্থনে ইসরায়েলই কর্তৃপক্ষও ঘোষণা দিল সতর্ক আশাবাদের। অন্য ক্যাম্প হতেও স্বীকার করা হল ত্রি-পক্ষীয় বুঝাপড়ার। এর আগে ২৩ সে ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন চারদিনের সময় দিয়ে দরকষাকষি করা যাবেনা এমন একটা প্রস্তাব উত্থাপন করেন শান্তি আলোচনায়। প্রস্তাবের সারমর্ম ছিলঃ প্যালেষ্টাইনিরা পশ্চিম তীরের শতকার ৯৬ ভাগের দখল পাবে, বাকি চার ভাগ যাবে ইসরায়েলদের দখলে। পূর্ব জেরুজালেমে বসতি-স্থাপ

এই শাড়িটা নেন, বিক্রি করে দিয়েন না

ঢাকা শহরে সুযোগ পেলেই আমি হাঁটি। অনেকেই হয়তো ভাবছেন, শখ করে সকাল বিকেল হাঁটাহাটির কথা বলছি। না, শখের হাঁটার কথার বলছি না; কষ্টের হাঁটার কথা বলছি। যেমন আজকের হাঁটার কথাটাই বলি।

বারিধারা থেকে বাসায় ফিরবো। অনেকক্ষণ দাড়িয়ে থাকলাম একটি স্কুটারের জন্য। তারপর যা পাওয়া গেল, সে ভাড়া চাইলো আড়াই শ' টাকা। অনেক চাইছে স্কুটারওয়ালা। এর কমে সে যাবে না। ঈদের বাজার বলে কথা। আমি আস্তে আস্তে হাটতে শুরু করলাম। দেখি সামনে কোনও খালি স্কুটার পাওয়া যায় কি না!

saif barkatullah's picture

ও পাখি তোর যন্ত্রণা

ও পাখি তোর যন্ত্রণা
সাইফ বরকতুল্লাহ

10543668_255636757976939_43730046_n-600x450.jpg
এক.
থ্রি পিস দোকানের অলিগলিতে হায়!
পাখি রাখছে টাঙ্গিয়ে
প্লাস্টিকের ডলগুলো রঙ বেরঙের
পাখিতে দিলো রাঙ্গিয়ে,
ডানা কাটা পাখি, মশার ভয়ে মশারি পাখি
আপা নিয়া যান, ঈদের কয়দিন আর বাকি
সিরিয়ালের নাম ভাঙ্গিয়ে হায়! ফ্যাশনে সয়লাব মার্কেট
হুজুগে মেতে বাঙালি, ঐতিহ্য বিকিয়ে ভরে ধাঙ্গর পেট৷
ও সুন্দরী আপারা সানি লিউন দিছেন নাকি বাদ?
এবার বুঝি পাখি ফ্যাশনে ভরবেন মনের সাধ?'
সামহয়্যার ইন ব্লগে কাজী ফাতেমা ফ্যাশনের রাজ্যে পাখি- শিরোণামে এই কবিতা লিখেছেন৷

রাজিউল হাসান's picture

কমলাপুরে আমার ঈদ অগ্রিম টিকিট কাটা

IMG_20140724_023220.jpg
২৪ জুন রাতে ঠিক মাঝামাঝি একটা সময় আমি কমলাপুর প্লাটফর্মে বসে আছি। কিছু আগেই ১০ টাকা দিয়ে একটা নিউজপেপার কিনেছি সারারাত দাঁড়িয়ে তাকতে পারবো না বলে। রাত ১১টায় কমলাপুরে লাইন ধরেছি। আমার আগে আরো ১৫১ জন চলে এসেছে। লাইফ ক্রেজি, নাকি পাবলিক ক্রেজি- তা নিয়ে ভিষণ চিন্তায় পড়ে হাবুডুবু খাচ্ছি তখন।

Masud.Majumder's picture

মুক্তি নয় তো মৃত্যু

Gazaজানবাজ হওয়া ছাড়া ফিলিস্তিনিদের আর কী করার ছিল বা আছে! নিজ ভূমে তারা অবরুদ্ধ, পরাধীন। টানা অবরোধ তাদের জীবনকে দুর্বিষহ করে তুলেছে। অবরুদ্ধ অবস্থায় ঘরে বসে মৃত্যুর চেয়ে শেষ লড়াইটুকু করে শহীদ হওয়া অনেক বেশি শ্রেয়। সব বিবেচনায় ফিলিস্তিনিদের সামনে একটা পথই খোলা আছে; স্বাধীনতা, নয়তো মৃত্যু। সম্ভবত এ কারণেই তারা জেনে বুঝে মৃত্যুর মিছিলে যোগ দিয়েছে। এ মিছিল শুরু হয়েছে ১৯৪৮ সাল থেকে। টানা ৬৬ বছর ধরে তারা অঘোষিত বন্দী জীবনযাপন করছে।

Mir.Abdul.Alim's picture

ঈদ আনন্দ নয়: ভয় হচ্ছে, ভীষণ ভয়!

কটা মাস ভালোয় ভালোয় কাটল। কিন্তু এখন ভয় হচ্ছে, ভীষণ ভয়!

'ছেলে মারে, বলতেও লজ্জা পান মা'

শিরোনামটা দেখে যে কোনো বয়সী স্পর্শকাতর মা কেঁদে ফেলবেন। বয়সী বলছি এই কারণে যে, লালন-পালন করা বড় ছেলেই তো করতে পারে কাজটা! মায়ের যখন বয়স হয়, যখন তার যত্নআত্তি এবং ভালোবাসা প্রয়োজন, তখন ছেলেমেয়েরাই পূরণ করে সে চাহিদা। বিশেষ করে মোটামুটি শিক্ষিত পরিবারে এটাই ঐতিহ্য। তবু সমাজে গড়ে উঠেছে বৃদ্ধাশ্রম।

syed shah salim ahmed's picture

মুজিব থেকে এরশাদঃ কাকতালীয় এক মিল:হাসিনা কি বাদ পড়বেন ?

বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে ভারত কেন্দ্রিক কিংবা ভারত ইস্যু এক বিরাট ভূমিকা রেখে থাকে। কি সরকারি কি বিরোধীদল- এ ক্ষেত্রে যেই ক্ষমতায় থাকে, ভারতীয় ইস্যুকে বিরোধীদল বেশ কায়দা কানুনের সাথে কাজে লাগিয়ে থাকে, ব্যতিক্রম শুধু শেখ হাসিনার ২০০৯ থেকে এখন পর্যন্ত চলে আসা সরকার। এ ক্ষেত্রে বিরোধীদল যতোটা না ভারতীয় এই কায়েমি ইস্যুকে মিডিয়া কেন্দ্রিক শোরগোল তুলতে পেরেছে, ততোটাই জনমনে আলোড়ন তুলে ফায়দা ঘরে তুলতে ব্যর্থ হয়েছে। কেননা বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকেই প্রত্যেকটা সরকারের সময়েই বিরোধীদল ভারতীয় ইস্যুকে বেশ দক্ষতার সাথে কাজে লাগিয়ে ক্ষমতায় এসেছিলো। শেখ হাসিনার সরকার ব্যতিক্রম এই কারনে যে প্রচণ্ড

faruk.joshi's picture

ব্রিটেনের রাজনীতিতে বাঙালির ভবিষ্যৎ

ব্রিটেনের সাম্প্রতিক স্থানীয় নির্বাচনে একটা ধাক্কা এসেছে ক্ষমতাশীন দলের। ব্রিটিশ রাজনীতিতে মাত্র ক'টা বছরের জানাশোনা নিয়ে ইউকিপ নামের দলটি মাঠে এসেই স্থানীয় নির্বাচনে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক জনপ্রতিনিধি পেতে সক্ষম হয়েছে। এবং ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে পেয়েছে অপ্রত্যাশিত ফল। গোটা ব্রিটেন থেকে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে এখন তাদের আসন ২৪টি। লেবার দলের ২০টি, টোরির ১৯টি এবং লিবারেল ডেমোক্র্যাটের মাত্র ১টি।

Syndicate content