নুরুন্নাহার শিরীন's picture

হচ্ছেটা কি স্বদেশ জুড়ে???

সত্যিই ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আজ অনেক দিন পরেই লিখতে বসেছি এইখানে। শরীর অবসন্ন। চলছে চিকিতসা। সেসব ছাপিয়ে আমার কাছে সবচে' অসহ্য আজ স্বদেশ জুড়ে খুনের লোমহর্ষক খবর। সকালে টেবিলে খবরের কাগজে চোখ দিতেও ভয়। টিভি ও অনলাইন নিউজ / সামাজিক যোগাযোগের সাইট সর্বত্রই বাংলাদেশের বিগত একমাসে খুনের ভয়ঙ্কর খবর নিয়ে লেখালিখির ঝড়। নারায়নগঞ্জের ভয়ঙ্করতম সাতটি খুনের পেছনে কি না র‍্যাবের তিনজন জড়িত! তবু আশার কথা ধরাতো পড়েছে, এবঙ বেরিয়েও আসছে তাদের মুখেই সত্য! এদেশে যেটি উদাহরণ।

A.S.Fahim's picture

বুঝে না বুঝেই ওদের ফাদে পড়তেছে বিএনপি!

বুঝে না বুঝেই ওদের ফাদে পড়তেছে বিএনপি!

বলছিলাম মোদীর বিজয়ের পর বাংলাদেশের নির্দিষ্ট গোষ্টির ইচ্ছেমূলক প্রচারণার কথা। আর তাতে বুঝে না বুঝে অবুঝের মত বিএনপিরও কিছু নেতা কর্মি ফেবুওলারা ঝাপিয়ে পড়েছে।

সবাই জানে আওয়ামীলীগের ভারতের গোলামীর কথা। এইটা নিয়ে আম-রাম-বাম-সুশীল ও তাদের পন্থী মিডীয়ারা ভিতরে ভিতরে অনেকেই বিব্রত বোধ করত।

Sahidul_77's picture

একজন ভাল মানুষ

 মানুষ.jpg

ভাল একজন মানুষ চাইরে,ভাল একটা মন,
জাতির জন্য ব্যকুল যিনি,থাকবে সারাক্ষণ।

উপচিকীর্ষায় লাগেনা রে,পর্বত সম ধন,
শুধু তোমার প্রয়োজন,উদারনৈতিক মন।

Md. Galib Mehdi Khan's picture

অচিরেই নেতৃত্ব শুন্যতার কবলে পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ!

image_79399.success.jpg
লগি-বইঠা দিয়ে মানুষ পিটিয়ে হত্যা, কুপিয়ে নিরীহ যুবক হত্যা, পেট্রোল বোমায় সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মাড়া এই আমাদের বর্তমান রাজনৈতিক সংস্কৃতি। এর পেছনে যে বা যারাই থাকুন না কেন কাজগুলি সম্পাদনের মহান দায়িত্বটি এসে বর্তায় ছাত্র রাজনীতির সাথে যুক্ত কতিপয় ছাত্র নেতাদের ঘারে। তারা আবার তাদের সহকর্মীদের সহযোগিতায় অর্পিত দায়িত্ব সোৎসাহে সুচারুরূপেই সম্পাদন করে থাকেন। বিনিময়ে পদ-পদবী, অর্থ-বিত্ত-ক্ষমতা সবই মিলছে। কেবল মাত্র যা মিলছে না, তা হল প্রকৃত শিক্ষা।

বিভাজন নয়, জাতীয় সংহতিই এ মুহূর্তে আশু প্রয়োজন

বিশ্বের বুকে স্বাধীন-সার্বভৌম দেশ হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যুদয় একটি অবিস্মরণীয় ঘটনা। লাল-সবুজের নতুন পতাকা ও একটি নির্দিষ্ট ভূখন্ড আমাদের জাতীয় গৌরবের স্মারক। যুদ্ধের মাধ্যমে এ দেশ অর্জিত হয়েছে, কোন চুক্তির মাধ্যমে নয়। বাংলার যে সব দামাল ছেলেরা স্বাধীনতার সূর্য ছিনিয়ে আনেন, গোটা জাতি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। যারা মুক্তিযুদ্ধে স্বজন হারিয়েছেন তাদের প্রতি রইল আমাদের গভীর সহানুভূতি ও আন্তরিক সমবেদনা। এ দেশের মানুষের মায়ের ভাষা বাংলা আন্তর্জাতিক মর্যাদা পেয়েছে, এটা আমাদের অহংকার। ভাষার জন্য আত্মদান অন্য কোন জাতির ইতিহাসে নেই।

Sahidul_77's picture

শেষ ঠিকানা

তোমরা কি আর বুঝবে কেহ?
আমার মনের দুঃখ।
খুব বেশী আজ পড়ছে মনে,
বাংলা মায়ের মুখ।

কেমন আছো মাগো তুমি?
তাওতো জানিনা।
তোমার জন্য সদায় কান্দে,
ভেস্তা হৃদয় খানা।

Mchowdhury's picture

ইস্যু ভিত্তিক আন্দোলন চাই, ক্ষমতাবদলের নয়!

wise.jpg
বেশ কয়েক বছর আগে জাপানের 'ন্যাশনাল ইন্সিটিউট ফর ফিজিওলজিকাল সাইয়েন্সেস' এর আমন্ত্রণে সুন্দর পাহাড়ি শহর 'ওকাযাকি' তে গেলাম। ট্রেন যখন স্টেশনে থামল তখন সন্ধ্যার আলোআঁধারি চারিদিকে। ষ্টেশন থেকে বের হওয়ার সাথে সাথেই পাহাড়ের খাড়া পথ বেঁয়ে অনেকখানি যাবার পর সুদৃশ্য ভবনের সারি। তারই একটিতে আমার থাকার বন্দোবস্ত হয়েছে। আমি রুমে ঢুকেই এক কাপ গরম সবুজ চা হাতে নিয়ে টি ভির সুইচ অন করলাম। সেখানে জাপানের সবচে প্রিয় যে খেলা 'সুমো' লড়াই চলছে। বিশাল দেহী দুইজন একজন অন্যজনকে কোনরকমে বৃত্তের বাইরে নিতে পারলেই খেলা শেষ।

Kamrul Hasan Masuk's picture

প্রচন্ড গরমে বহুজাতিক কম্পানিগুলো যা করতে পারে

গরমে গরমে নগরবাসীর অবস্থা বড়ই নাজুক। ৫৪ বছরের ইতিহাসে বাংলাদেশে এই প্রথম এত গরম। গরমের সাথে সাথে মানুষজনের মেজাজ খারাপ করার পাশাপাশি বাড়ছে অস্থিরতা। এই অস্থিরতা কমানোর জন্য বহুজাতিক কোম্পানিগুলো বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে পারে।

Sahidul_77's picture

শ্রেষ্ঠ দান

তোমার দোয়ায় ভাল আছি,
মাগো আমি প্রবাসে।
কেমন আছো বল মাগো?
তুমি আপন নিবাসে।

কতদিন হয় দেখিনা মা,
তোমার বদনখানি।
কতদিন হয় শুনিনা মা,
তোমার মধুর বানী।

Md. Galib Mehdi Khan's picture

যখন বিষণ্ণ জন্মদাত্রী “মা”; সন্তানের যাচিত নরকবাস!

9d10c7cfeaf5e1163a7f50456197494c.png
সারা জীবনের যত খাটা খাটুনি; তা তো একটু সচ্ছলতা, একটু সুখেরই আশায়। এই যে দিনে দিনে আমরা এক একটি যন্ত্র মানব হয়ে উঠছি তা তো একটুকু নিশ্চিন্ত নিরাপত্তা বিধানের নিমিত্তেই। কিন্তু; এই সুখ সমৃদ্ধির সাথে যদি শান্তির সমন্বয় না ঘটে তাহলে এর সবই কি এক সময় মূল্যহীন মনে হবে না? অথচ মানুষের জীবনে সুখ-সমৃদ্ধি অর্জন যতটা কষ্ট সাধ্য ঠিক ততটাই সহজ সাধ্য শান্তি অর্জন। প্রয়োজন একটু ছাড় দেয়ার মানসিকতা। বড় লাভের তরে সামান্য ত্যাগ। কথাটি এ জন্য বলছি; আজ আমরা যারা লাগামহীন ভোগের জীবনে প্রবেশ করেছি তারা অনেক কিছু অর্জনে সক্ষম হলেও একই সাথে অশান্তির দাবানলেও নিত্য দগ্ধ হচ্ছি। যার স্রষ্টাও আমরাই।

Syndicate content