ঈদ ২০১৪: বিচ্ছিন্ন কিছু ভাবনা - জাকারিয়া স্বপন

আজ বাংলাদেশে ঈদ শেষ হয়ে গেল। এখন যদিও ঘড়ির কাঁটায় ৩০ জুলাই শুরু হয়ে গেছে, তবুই "আজ" বললাম ঈদের রেশটুকু যেন সেন্ট মার্টিনের ফ্রেশ বাতাসের মতো প্রাণের ভেতর আটকে থাকে। ঢাকার জীবনে ফ্রেশ বলে কিছু নেই। বাতাস থেকে শুরু করে খাবার পর্যন্ত কোথাও ফ্রেশ নেই। হয়তো মানুষের বেলাতেও সেটা সত্যি। ফ্রেশ মানুষ থাকলে, ফ্রেশ বিষয়াদিও হয়তো থাকতো।

আমার শরীরটা ভালো না। টনসিল ব্যাথা। কাল রাতে আবার জ্বরও এলো। সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি মুখ তিতা হয়ে আছে। শরীর চালানো মুশকিল। দুপুর নাগাদ খাওয়ার জন্য একটু বের হওয়া হলো। তারপর বিছানায় শুয়ে একটু বিশ্রাম নেয়ার চেষ্টা। আমেরিকা থেকে খুব বন্ধুরা এসেছে। তাদেরকে দেখতে গেলাম। তারপর রাতে ডিনার করে বাসায় এসে এই লিখতে বসা। ব্যাস, সাদামাটা ঈদ শেষ। কিন্তু এই অল্প সময়ে কিছু জিনিস মাথায় ঢুকেছে। ভাবলাম একটু লিখে রাখি। পরের বার হয়তো আর লেখার সুযোগ নাও পেতে পারি।

প্যালেস্টাইনে গণহত্যা: ইসরাইলের দস্যুবৃত্তির চরম সীমালঙ্ঘন

ইসরাইল বিশ্বের সকল সভ্য মানুষের আবেদন আহ্বান কে তোয়াক্কা না করে প্যালেস্টাইনে নির্বিচারে গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রতিহিংসার কারণে সারাবিশ্বের চোখের সামনে শত শত নিরীহ নাগরিকদের হত্যা, একের পর এক ঘরবাড়ি-হাসপাতাল ধ্বংস করে চলেছে তারা। মানবতার বিরুদ্ধে এতো বড় অপকর্মের প্রতিবিধান যদি না হয় তা বিশ্বের সকল সভ্য নাগরিকের জন্য দুর্ভাগ্যের।

A.S.Fahim's picture

বিলাত কথন: ১- যাত্রা শুরুর কথা

বিলাত কথনের শুরুতে আমার লন্ডন যাত্রার প্রেক্ষাপট বলা দরকার।

আসলে লন্ডন বা ইংল্যান্ড যাওয়ার তেমন আগ্রহ আমার কোন সময় ছিলনা। না হয় ২০০৪ বা তারও আগে-পরে চলে যেতে পারতাম। আমার বরং বিদেশ যাওয়ার চাইতে দেশে পলিটিক্স করেই আনন্দ পেতাম। ফ্রেন্ডরা যখন টাংকির চিন্তায় অস্থির আমি তখন প্রোগ্রাম কেমনে সফল করা যায় তা নিয়ে চিন্তায় অস্থির। সেটা কলেজ লাইফ থেকেই।
সেই আমিই হঠাৎ করেই বিদেশে চলে আসতে হল। এর পিছনে অনেক কিছু কারণ ছিল। তার মধ্যে অন্যতম বাবা-মার সীমাহীন টেনশন (দেশের অস্থিরতা) আর কিছু প্রিয় লোকের উপর আসা তীব্র ঘৃনা ও বিরক্তি। মূলত এই দুইয়ের যোগফলেই বিদেশ চলে আসার সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করে।

WatchDog's picture

ছোট হয়ে আসছে পৃথিবী...

1.jpg
শরীর নয় যেন ধারালো ছুরি। অন্তত ভদ্রমহিলা নিজকে তাই মনে করছেন সন্দেহ নেই। এসব জানতে মনোবিজ্ঞানী অথবা মাইন্ড রিডার হওয়ার দরকার হয়না। শরীরী ভাষাই সব বলে দেয়। দম্ভে, অহমিকায় পা নীচে নামছেনা। ভাল করে লক্ষ্য করলে মনে হবে তিনি উড়ছেন। দু’ঘণ্টা হয়ে গেল দেখছি। অথচ একবারের জন্যও হাসতে দেখলাম না। এমন একটা চাকরির মুল শর্ত হাসি। হাজার যন্ত্রণার মাঝেও হাসতে হয়। এমনকি নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও হাসি দিয়ে তা লুকাতে হয়। বলছিলাম বাংলাদেশ বিমানের মরহুম নিউ ইয়র্ক-ঢাকা রুটের কোন এক ফ্লাইটের কথা।

Md. Rowshon Alam's picture

কান্নার মত গভীর কিছু নেই

মানুষ সামাজিক জীব। সমাজের স্বাভাবিক নিয়ম-নীতির মধ্যেই আমাদের বসবাস। সেই স্বাভাবিক নিয়ম-নীতির বাইরে যখন অস্বাভাবিক কিছু ঘটে যায়, তখনই দেখা দেয় নানান বিপত্তি, বিশৃঙ্খলা ও অনাচার। আবার সমাজের সব কিছুই যে ঠিকঠাক বা নিয়ম-নীতির মধ্যেই চলবে, তাঁরও কোনো গ্যারান্টি নেই। বিশেষ করে সমাজের ভিতরেই যখন লুকে থাকে মানুষরুপী কিছু অস্পৃশ্য শক্তি, মনস্টার বা গডফাদার- যাদের অদম্য প্রভাব সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক জীবনকে দুর্বিষহ করে তোলে, পদে পদে মানুষকে পীড়া দেয়, বেঁচে থাকার মুহূর্তগুলোকে কঠিন করে তোলে। হত্যা, গুম, অপহরণ বা নিখোঁজ হচ্ছে সেইসব মনস্টার বা অস্পৃশ্য শক্তিরই প্রভাব।

ফিলিস্তিনে ইসরাইলের বর্ণবাদী কর্তৃত্ব

১.
রাজায়-রাজায় যুদ্ধ হয় উলু খাগড়ার প্রাণ যায়। কত প্রাণ যাবে? যাক না! যতই যাবে তা হবে নিপাতনে সিদ্ধ। গাজায় নিরীহ নাগরিকদের ওপর ইসরাইলের বর্বর হামলায় মৃত্যুর মিছিলে অনবরত যোগ হচ্ছে নারী আর শিশু। অসুবিধে কোথায়!সুযোগ মতো বিবৃতি দিলেই হবে। সংগঠনের বা সংস্হার প্যাডে বিবৃতির ফরম্যাট বিশ/পঞ্চাশ বছর আগেই তৈরি আছে শুধু তারিখটা হালনাগাদ করে নেয়া হবে। নারীবাদী,শিশুবান্ধব হতে কতক্ষণ! মুখপাত্র যারা আছে তারা চাকরিতে যোগদানের সাথে সাথে বক্তব্যগুলো কয়েক প্রকার ফরম্যাটে প্রিন্টআউট নিয়ে ঝেড়ে মুখস্হ করে নেয়, কোনো সমস্যা হয় না, শুধু মুখস্হ বুলি আওড়ানো। যত বড় আন্তর্জাতিক সংস্হাতেই থাকা হোক না কেন একটুও সমস্যা হয় না।

Sahidul_77's picture

ঈদ মোবারক

thumb_EID MOBAROK.jpg

ঈর্ষা ভুলো বিদ্বেষ ভুলো, ভুলো অভিমান,
ঈদানন্দে, মনাহ্লাদে রাঙ্গাও তোমার প্রান।
ধনি-গরীব আজকে কারো নাইরে ব্যবধান,
উচু-নীচু নাইরে প্রভেদ সবাই আজি সমান।

Golam.Mortoza's picture

আজান এবং মধ্যরাতের ডাকাডাকি

Mosque

ভোরে ঘুম ভাঙ্গতো বকুল ফুলের গন্ধে, আর দূর থেকে ভেসে আসা মাইকবিহীন আজানের ধ্বনি -সত্যিই বিশ্ময়কর ছিল ' আজানের সুমধুর ধ্বনি '! কান পাতলে এখনো অনুভব করি গ্রামের মসজিদের সেই আজানের ধ্বনি, বকুল ফুলের সেই গন্ধ এখনও অম্লান!!

Md. Rowshon Alam's picture

ক্যান্সারমুক্ত পৃথিবী গড়ি

কিছু কিছু রোগ বা ইনফেকশনের সৃষ্টি হয় মাইক্রবস বা অণুজীব বা জীবাণু দ্বারা (ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস, প্রটোজোয়া, ভাইরাস)। সেই রোগ বা ইনফেকশনগুলো হচ্ছে যেমন নিউমোনিয়া, ইনফ্লুয়েঞ্জা ও টিউবারকোলসিস বা যক্ষ্মা। এক সেঞ্চুরি আগেও এই রোগগুলো কোনো সাধারণ রোগ ছিল না, ছিল বরং ভয়ানক আতঙ্কিত ও অপ্রতিরোধ্য। এগুলো আমাদের এনসেসটার বা পূর্বপুরুষদের অমূল্য জীবনকে নিমিষেই কেড়ে নিত। কারণ এই অসুস্থতাগুলোর বিরুদ্ধে কোনো কার্যকরী প্রতিষেধক তখনো আবিষ্কৃত হয়নি।

A.S.Fahim's picture

বিএনপির ঠিকে থাকার জন্যই শক্তিশালী ছাত্রদল দরকার

আমার ফেবু লিংক: ১/ ফেবুতে আমাকে পান
২/ এটাও আমার ফেবু আইডি
ছাত্রদলের ভুলভ্রান্তি নিয়ে এবং তা দূর করা নিয়ে অতীতে অনেক লিখেছি। অনেকেই প্রশংসা করে ইনবক্সে মেসেজ দিয়েছেন। অনেকে বলেছেন ভাই এইসব বলে লাভ কি? যারা শুনার তারা শুনছে না, যারা বুঝার তারা বুঝেও নীরব। আবার অনেকেই বলেছেন এইসব লিখে ছাত্রদলের মনোবল নাকি নষ্ট করে দিচ্ছি। আপনাদের বলি আমি এমন কেউ না যে আমার লেখায় ছাত্রদলের মনোবল নষ্ট হয়ে যাবে। আর একজন সাবেক ছাত্রদল কর্মী হিসেবে নিশ্চয়ই ছাত্রদলের ক্ষতি হউক তা চাইনা। কিন্তু সমস্যা হল যে ছাত্রদলকে দেখে বড় হয়েছি সেই ছাত্রদল আর আজকের ছাত্রদলের মধ্যে বিস্তর ফারাক। তাই অসামঞ্জস্য গুলো চোখে পড়লেই হতাশা থেকেই লেখি আর আশা করি ছাত্রদল সেই আগের অবস্থায় ফিরে যাবে।

Syndicate content